Press ESC to close

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড অডিও ট্রান্সক্রিপশন

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড অডিও ট্রান্সক্রিপশন সুবিধা সংযুক্ত হয়েছে লেখালেখির পাশাপাশি। সুবিধাটি আপাতত মাইক্রোসফট ৩৬৫ সাবসক্রাইবারসদের জন্য অনলাইনে উপলব্ধ হবে। অডিও ট্রান্সক্রিপশন

The post মাইক্রোসফট ওয়ার্ড অডিও ট্রান্সক্রিপশন appeared first on টেকমাস্টার ব্লগ.

মাইক্রোসফট অফিস ইউআই ও ডিজাইনে পরিবর্তন

মাইক্রোসফট অফিস এর আসন্ন ভার্সনে ইউআই এবং ডিজাইনে পরিবর্তন আনতে চলেছে মাইক্রোসফট।। মাইক্রোসফট এ বিষয়ক একটি টিজার প্রকাশ করেছে। নতুন

The post মাইক্রোসফট অফিস ইউআই ও ডিজাইনে পরিবর্তন appeared first on টেকমাস্টার ব্লগ.

মেসেঞ্জারে স্ক্রিন শেয়ার ফিচার

মোবাইল ডিভাইসে মেসেঞ্জারে স্ক্রিন শেয়ার ফিচার চালু করেছে ফেসবুক। একক কারও সাথে কথা বলার সময় বা গ্রুপ কলেও মোবাইলের স্ক্রিন

The post মেসেঞ্জারে স্ক্রিন শেয়ার ফিচার appeared first on টেকমাস্টার ব্লগ.

সেরা ৫ ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ [২০২০]

ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ

আপনি যদি ইউটিউব ব্যবহার করে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই জানেন যে ইউটিউব তাদের সার্ভারে থাকা বেশিরভাগ ভিডিও ডাউনলোড করতে দেয় না। কারণ এটি সম্পূর্ণ তাদের Terms of Service এর বিরুদ্ধে।

তবে আপনার যদি কোনো কারণে ইউটিউব হতে ভিডিও ডাউনলোড করার প্রয়োজন হয় তাহলে আপনি দুটি উপায়ে ইউটিউব হতে ভিডিও ডাউনলোড করতে পারেন।

প্রথমত আপনি একটি থার্ড পার্টি ওয়েবসাইট ব্যবহার করে ভিডিও ডাউনলোড করতে পারেন। দ্বিতীয়ত অ্যান্ড্রয়েডে একটি ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ ব্যবহার করে ভিডিও ডাউনলোড করতে পারেন।

ওয়েল, আজকের আর্টিকেলে প্রথম পদ্ধতিটি নিয়ে আলোচনা করবো না। আজকে আলোচনা করবো দ্বিতীয় পদ্ধতিটি অর্থাৎ ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ নিয়ে; যার সাহায্যে আপনি খুব সহজেই ইউটিউব হতে ভিডিও ডাউনলোড করতে পারবেন।

তো ভূমিকায় আর কথা না বাড়িয়ে একনজরে দেখে নেয়া যাক সেরা ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ লিস্টে কোন কোন অ্যাপ স্থান দখল করে নিয়েছে?

বিঃদ্রঃ ইউটিউব হতে কপিরাইটের আওতাধীন ভিডিওগুলো ডাউনলোড করা থেকে বিরত থাকুন। ভিডিও ডাউনলোড করার ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ক্রিয়েটিভ কমন্স লাইসেন্সের অধিনে থাকা ভিডিওগুলো ডাউনলোড করুন।

$ads={1}
আরো পড়ুনঃ

সেরা ৫ ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ ২০২০

1. YouTube Go

YouTube Go হলো গুগলের অন্যতম একটি লাইটওয়েট অ্যাপ যা মূলত লো-ইন্ড স্মার্টফোনগুলোর জন্য তৈরি করা হয়েছে। তবে, আপনি যদি লিগালি অর্থাৎ বৈধভাবে ইউটিউব হতে ভিডিও ডাউনলোড করতে চান তাহলে এই অ্যাপটি আপনার উপকারে আসতে পারে।

গুগলের এই অ্যাপটি ব্যবহার করে ভিডিও ডাউনলোড করা অনেক সহজ। আপনার পছন্দের ভিডিওটিতে ক্লিক করার পর আপনি দুটি বাটন দেখতে পাবেন। একটি ‘প্লে’ বাটন আরকেটি হলো ‘ডাউনলোড’ বাটন।

আপনি কোন ফরমেটে আপনার পছন্দের ভিডিওটি ডাউনলোড করতে চাচ্ছেন তা সিলেক্ট করে ‘ডাউনলোড’ বাটনে ক্লিক করলেই ব্যাস আপনার কাজ শেষ।

যারা লিমিটেড ইন্টারনেট ব্যবহার করে অথবা যেসব ইউজারদের এলাকায় ইন্টারনেট কানেকশন খুবই স্লো তাদের কথা মাথায় রেখেই এই অ্যাপটি গুগল তৈরি করেছে।

অ্যাপটির সাহায্যে ইন্টারনেট কানেকশন ছাড়াই ভিডিও শেয়ারও করা যাবে। গুগলের এই অ্যাপটি ফ্রি, বিদায় বিনামূল্যেই এটি ডাউনলোড করা যাবে।

2. TubeMate

আজকের আর্টিকেলে ২য় স্থানে থাকা ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ হলো TubeMate। ইজি-টু-ইউজ ইউজার ইন্টারফেসের এই অ্যাপটির মাধ্যমে ইউটিউব ছাড়াও অন্যান্য ভিডিও শেয়ারিং সাইট হতেও ভিডিও ডাউনলোড করা যাবে।

ভিডিও ডাউনলোডের পাশাপাশি বিভিন্ন সাইটে ব্রাউজ করার জন্য এতে একটি বিল্ট-ইন ব্রাউজারও রয়েছে। ব্রাউজারটির সাহায্যে আপনি আপনার কাঙ্খিত সাইট হতে ভিডিও ডাউনলোড করাতে পারবেন।

এর সাহায্যে আপনি কোন ফরমেটে আপনার পছন্দের ভিডিওটি ডাউনলোড করতে চান তা সহজেই সিলেক্ট করতে পারবেন এবং ডাউনলোড করার পর ভিডিওটি অটোমেটিক্যালি আপনার ফোনের স্টোরেজে স্টোর হয়ে যাবে।

অ্যাপটির সাহায্যে আপনি আপনার পছন্দের ভিডিওটি এমপি৩ ফরমেটেও ডাউনলোড করতে পারবেন। তবে তার জন্য আপনার একটি ভিডিও টু এমপি৩ কনভার্টার অ্যাপের প্রয়োজন হবে।

এই অ্যাপটিও ফ্রি, তবে এতে কোন অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই। অ্যাপটি এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট হতে ডাউনলোড করা যাবে।

3. Videoder

আর্টিকেলে থাকা আরেকটি বেস্ট ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ হলো এই Videoder। এটি খুবই শক্তিশালী একটি ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ।

এতে ভিডিও ডাউনলোড করার জন্য সমস্ত ফিচারসই প্যাক করা হয়েছে। এই অ্যাপটির সাহায্যে আপনি ইউটিউব ছাড়াও ইনস্টাগ্রাম, ফেইসবুক
সহ অন্যান্য সাইট হতেও ভিডিও ডাউনলোড করতে পারবেন।

অ্যাপটির সাহায্যে ভিডিও ডাউনলোড করার পাশাপাশি আপনি চাইলে অনলাইনে স্ট্রিমিংও করতে পারবেন। তাছাড়া এর কাস্টমাইজেবল ইউজার ইন্টারফেস থাকায় আপনি নিজের মতো করে অ্যাপটি কাস্টমাইজ করে নিতে পারবেন।

অ্যাপটির সাহায্যে আপনি খুব দ্রুত আপনার পছন্দের ভিডিও ডাউনলোড করতে পারবেন। এতে একটি বিল্ট-ইন ভিডিও প্লেয়ারও রয়েছে।

অ্যাপটি প্লে স্টোরে পাওয়া যাবে না। তাই ডাউনলোড করতে হলে তাদের অফিশিয়াল সাইট থেকেই করতে হবে। এই অ্যাপটি সম্পূর্ণ ফ্রি; তবে এতেও কোন অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই।

4. KeepVid

বর্তমান সময়ের ওয়ান অফ দ্যা বেস্ট ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ হলো KeepVid। এটি বেশ জনপ্রিয় একটি ভিডিও ডাউনলোডর অ্যাপ।

এর সাহায্যে আপনি ইউটিউব হতে ভিডিও ডাউনলোড করতে পারবেন অন্যান্য সব ভিডিও ডাউনলোডারের চেয়ে বেশি স্পিডে। তাছাড়া এর সাহায্যে আপনি ইউটিউব এর পাশাপাশি ২৭টি ভিডিও শেয়ারিং সাইট হতেও ভিডিও ডাউনলোড করতে পারবেন।

সহজে ব্যবহারযোগ্য ইউজার ইন্টারফেসের এই অ্যাপটির মাধ্যমে আপনি অন্যান্য এইচডি ফরমেটের পাশাপাশি ৪কে রেজুলেশনও ভিডিও ডাউনলোড করতে পারবেন। এছাড়াও এর সাহায্যে আপনি এমপি৩ ফরমেটেও ভিডিও ডাউনলোড করাতে পারবেন।

অ্যাপটিতে একটি বিল্ট-ইন ভিডিও প্লেয়ার এবং অডিও প্লেয়ার রয়েছে। আর এই অ্যাপটি সম্পূর্ণ ফ্রি; তবে এতে কোন অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই।

5. VidMate

আজকের আর্টিকেলে ৫ম স্থানে রয়েছে VidMate। এটি বর্তমান সময়ের আরেকটি জনপ্রিয় ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ। অনেকেই এই অ্যাপটি ইউটিউব হতে ভিডিও ডাউনলোড করার জন্য ব্যবহার করে থাকে।

এতে আপনি বিভিন্ন ভিডিও ক্যাটাগরিতে যেমন মুভি, মিউজিক, টিভি শো ব্রাউজ করে অথবা সার্চ বারে সার্চ করার মাধ্যমে সহজেই ভিডিও ডাউনলোড করতে পারবেন।

অ্যাপটির সাহায্যে আপনি আপনার পছন্দের ভিডিওটি বিভিন্ন ফরমেটে ডাউনলোড করতে পারবেন এবং আপনার ফোনের স্টোরেজে স্টোর করে রাখতে পারবেন। অ্যাপটির ডাউনলোড স্পিডও বেশ ভালোই।

এতে বিল্ট-ইন ভিডিও প্লেয়ার ও মিউজিক প্লেয়ারও রয়েছে। পাশাপাশি অ্যাপটির সাহায্যে আপনি এনক্রিপ্টেড স্পেস তৈরি করে ভিডিও হাইড করেও রাখতে পারবেন।

আর এই সমস্ত ফিচার আপনি ফ্রিতেই পেয়ে যাচ্ছেন। এই অ্যাপটিও প্লে স্টোরে নেই, বিদায় তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করতে হবে।

এই ছিলো বর্তমান সময়ের কয়েকটি সেরা ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডার অ্যাপ। আশা করি আর্টিকেলটি ভালো লেগেছে। আর ভালো লেগে থাকলে কমেন্টে অবশ্যই জানাবেন।

সেরা ৫ ফ্রি টরেন্ট অ্যাপ [২০২০]

সেরা ৫ ফ্রি টরেন্ট অ্যাপ

আমরা কমবেশি সকলেই টরেন্ট এর সাথে পরিচিত। মুভিজ, মিউজিক, টিভি সিরিয়াল, সফটওয়্যার ইত্যাদি ডাউনলোড করার জন্য অনেকেই এই জনপ্রিয় মাধ্যমটি ব্যবহার করে থাকেন।

অনেকে মনে করেন টরেন্ট এর মাধ্যমে কোন কিছু ডাউনলোড করা সম্পূর্ণ অবৈধ। কিন্তু এই ধারণাটি অনেকাংশে ভুল। কেননা এটি বৈধ নাকি অবৈধ সেটা নির্ভর করে আপনি কি ডাউনলোড করছেন তার উপর।

আপনি যদি পাইরেটেড মুভি, মিউজিক, সফটওয়্যার ইত্যাদি ডাউনলোড করার জন্য টরেন্ট ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আপনার টরেন্ট প্রসেসিং সম্পূর্ণ অবৈধ।

যাইহোক টরেন্টিং বৈধ নাকি অবৈধ সেটা আমাদের আজকের বিষয় না। যারা পিসিতে টরেন্ট ডাউনলোড করেন তারা সকলেই টরেন্ট ক্লাইন্ট বিট-টরেন্ট বা ইউ-টরেন্ট ব্যবহার করে ফাইলগুলো ডাউনলোড করে থাকেন।

কিন্তু এখন আপনি চাইলেই আপনার স্মার্টফোন ব্যবহার করেই টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারেন। গুগল প্লে স্টোরে টরেন্ট ডাউনলোড করার জন্য বেশ কিছু অ্যাপ রয়েছে।

কিন্তু প্রশ্ন হলো এগুলোর মধ্যে সেরা টরেন্ট অ্যাপ কোনটি? এই প্রশ্নের উত্তর দিতেই আজকের এই আর্টিকেল নিয়ে আমি আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি।

$ads={1}
আরও পড়ুনঃ

সেরা ৫ অ্যান্ড্রয়েড টরেন্ট অ্যাপ ২০২০

1. uTorrent

uTorrent - টরেন্ট অ্যাপ

আমাদের লিস্টে প্রথমেই রয়েছে জনপ্রিয় টরেন্ট ডাউনলোড অ্যাপ uTorrent। এটি টরেন্ট ডাউনলোড অ্যাপগুলোর মধ্যে অন্যতম সেরা একটি অ্যাপ। গুগল প্লে স্টোরে এর ১০০ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোড রয়েছে। প্লে স্টোরে এর রেটিংও বেশ ভালো।

ক্লিন এন্ড কাট ইউজার ইন্টারফেস এর এই অ্যাপটিতে টরেন্ট ডাউনলোড করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ফিচারসই রয়েছে। ম্যাগনেট লিংক সাপোর্ট এর পাশাপাশি অ্যাপটিতে আপনি একাধিক একটিভ টরেন্টও একসাথে সেট করতে পারবেন।

এছাড়াও অ্যাপটির সাহায্যে আপনি একের অধিক ফাইল একসাথে ডাউনলোড করতে পারবেন। এতে ইন্টিগ্রেটেড মিডিয়া লাইব্রেরি এবং মিডিয়া প্লেয়ার থাকায় ডাউনলোডের পাশাপাশি আপনি অনলাইনেই ভিডিও প্লে করতে পারবেন।

কোন ফাইল ডাউনলোড করার সময় আপনি এটি কোথায় সেভ করতে চান তাও সিলেক্ট করার অপশান এতে রয়েছে। এতে ব্যাটারি সেভার ফিচারও রয়েছে, তবে তা ফ্রি ভার্সনে উপলব্ধ নয়।

অ্যাপটির সাহায্যে কোনো ফাইল ডাউনলোড কারার সময় আপনি কত স্পিড পাচ্ছেন এবং ফাইলটির সীডার্স এবং লীচার্স কত ইত্যাদি তথ্য সহজেই জানতে পারবেন।

এই টরেন্ট ডাউনলোডার অ্যাপটি প্লে স্টোর হতে ফ্রিতেই ডাউনলোড করা যাবে। তবে এর ফ্রি ভার্সনে অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই। এছাড়াও ফ্রি ভার্সনে কিছু ফিচারস লিমিটেশন রয়েছে।

মনে রাখা ভালো কোন ফাইল ডাউনলোডের ক্ষেত্রে সীডার্স এবং লীচার্স এর অনুপাত সমান হারে থাকলে ফাইলটি খুব দ্রুত ডাউনলোড করা যাবে।

2. BitTorrent

BitTorrent - টরেন্ট অ্যাপ

আজকের লিস্টের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে BitTorrent। অ্যাপটি প্রায় ইউটরেন্ট অ্যাপের মতোই। প্লে স্টোরে এর ৪.৩ রেটিংয়ের পাশাপাশি ১০ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোড রয়েছে।

ইউটারেন্ট অ্যাপের বিকল্প হিসেবে আপনি এই অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন। সহজ সাবলীল ইউজার ইন্টারফেসের এই অ্যাপটিতে রয়েছে ইন্টিগ্রেটেড মিডিয়া লাইব্রেরি।

ডাউনলোডের পাশাপাশি অনলাইনে ভিডিও প্লে করার জন্য রয়েছে মিডিয়া প্লেয়ার। মূলত এতে ইউটারেন্ট অ্যাপের সমস্ত ফিচারসই প্যাক করা হয়েছে।

আপনি এতে কোন ফাইল ডাউনলোড করার আগে লোকেশন সেট করতে পারবেন, যদি মোবাইল ডাটা দিয়ে ডাউনলোড করতে না চান ওয়াই ফাই মোড অন করে রাখতে পারবেন, এছাড়াও এটি দিয়ে আপনি একসাথে অনেকগুলো ফাইল ডাউনলোডও করতে পারবেন।

এই অ্যাপটি ফ্রি। তবে এর ফ্রি ভার্সনে ফিচার সংখ্যা কিছু কম এবং এতে অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই। ইন-অ্যাপ-পারচেস এর মাধ্যমে অ্যাপটি প্রো ভার্সনে আপগ্রেড করা যাবে।

3. Flud

Flud - টরেন্ট অ্যাপ

আরেকটি ফুলি-ফিচার্ড অ্যান্ড্রয়েড টরেন্ট ক্লায়েন্ট হলো Flud। প্লে স্টোরে অ্যাপটির ৪.৬ রেটিং এর পাশাপাশি ১০ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোড রয়েছে।

অ্যাপটির ফ্রি ভার্সনে সকল প্রয়োজনীয় ফিচারসই রয়েছে। সহজে ব্যবহারযোগ্য ইউজার ইন্টারফেসের এই অ্যাপটির সাহায্যে আপনি কোন ডাউনলোড লিমিট ছাড়াই আপনার পছন্দের টরেন্ট ফাইলটি ডাউনলোড করতে পারবেন।

অ্যাপটির ইউজার ইন্টারফেস কাস্টমাইজ কারার অপশন থাকায় আপনি লাইট অথবা ডার্ক মোডে টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন।

অ্যাপটির সাহায্যে আপনি ডাউনলোড লোকেশন সেট করতে পারবেন, ফাইল ডাউনলোডের সময় তা অন্য ফোল্ডারে স্থানান্তর করতে পারবেন, ওয়াই ফাই মোড চালু করে রাখতে পারবেন, এছাড়াও আরো অনেক ফিচার এতে রয়েছে।

অ্যাপটি ম্যাগনেট লিংক সাপোর্টের পাশাপাশি অনেকগুলো প্রটোকলও সাপোর্ট করে। যেমনঃ UPnP, DTH, PeX, uTP ইত্যাদি।

এছাড়াও অ্যাপটি এনক্রিপশন, আইপি ফিল্টারিং এবং প্রক্সি সমর্থিত হওয়ায় নিরাপদে টরেন্ট ডাউনলোড করা যাবে।

আর এই সব ফিচার আপনি অ্যাপটির ফ্রি ভার্সনেই পাচ্ছেন। তবে এর ফ্রি ভার্সনে কোন অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই।

4. TorrDroid

TorrDroid - টরেন্ট অ্যাপ

TorrDroid অ্যাপটির সাহায্যে আপনি সহজেই টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন। এতে একটি বিল্ট-ইন সার্চ ইঞ্জিন রয়েছে, যা আপনাকে বিভিন্ন টরেন্ট ফাইল অনুসন্ধান করতে সাহায্য করবে।

অ্যাপটিতে থাকা সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে আপনি ফ্রি এবং ওপেন সোর্স কন্টেন্টগুলো ডাউনলোড করতে পারবেন।

গুগল প্লে স্টোরে এই অ্যাপটির ভালো রেটিং এর পাশাপাশি ১০ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোড রয়েছে। এর ইউজার ইন্টারফেসও বেশ সহজ।

অ্যাপটির সাহায্যে আপনি একসাথে অনেকগুলো টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন। এতে ওয়াই ফাই মোড, এক্সটার্নাল মেমোরি সাপোর্ট সহ প্রয়োজনীয় সকল ফিচারসই প্যাক করা হয়েছে।

অ্যাপটি ম্যাগনেট লিংক সাপোর্ট সহ অনেকগুলো প্রটোকলও সাপোর্ট করে। যেমনঃ DHT, LSD, UPnP, NAT-PMP। অ্যাপটির সাহায্যে আপনি হাই স্পিডে টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন কোন প্রকার রেস্ট্রিকশন ছাড়াই।

আর এই সব ফিচারসের বেশির ভাগই ফ্রিতেই পাওয়া যাবে। কিন্তু অ্যাপটির ফ্রি ভার্সনে কোন অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই।

5. ZetaTorrent

zetaTorrent - টরেন্ট অ্যাপ

লিস্টে থাকা আরেকটি সেরা টরেন্ট অ্যাপ হলো ZetaTorrent। এই অ্যাপটিতে রয়েছে ইউনিক সব ফিচার। প্লে স্টোরে অ্যাপটির ১ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোডের পাশাপাশি ৪.৪ রেটিং রয়েছে।

অ্যাপটিতে একটি বিল্ট-ইন ব্রাউজার রয়েছে এবং এতে একটি অ্যাড-ব্লকারও রয়েছে। এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে টরেন্ট ফাইল এবং ম্যাগনেট লিংক সনাক্ত করতে পারে।

অ্যাপটিতে বিল্ট-ইন ব্রাউজারের পাশাপাশি একটি ফুলি-ফিচার্ড ফাইল ম্যানেজার রয়েছে, যার মাধ্যমে আপনি ফাইল ট্রান্সফার করতে পারবেন।

অ্যাপটিতে টরেন্ট ডাউনলোড করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ফিচারসই প্যাক করা হয়েছে। এতে ওয়াই ফাই মোড, ডার্ক মোড, ডাউনলোড লিমিট সেট করার ফিচার সহ আরো অনেক ফিচারস রয়েছে।

প্লে স্টোরে অ্যাপটির একটি ফ্রি ভার্সন রয়েছে। তবে এতেও অন্যান্য টরেন্ট ক্লায়েন্টের মতো কোন অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই এবং ফ্রি ভার্সনে ফিচার সংখ্যাও কিছু কম।

এই ছিলো অ্যান্ড্রয়েডের জন্য সেরা ৫টি টরেন্ট অ্যাপ। আপনি যদি আপনার ফোনে টরেন্টের মাধ্যমে কোন কিছু ডাউনলোড করতে চান, তাহলে উপরে উল্লেখিত অ্যাপগুলো ট্রাই করে দেখতে পারেন। আশা করি ভালো লাগবে।

Truecaller Tracking User’s SMS

স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছে জনপ্রিয় একটি অ্যাপস ‘ট্রুকলার’। বিশেষ করে অচেনা নম্বর থেকে ফোন আসলে আগে থেকেই কে ফোন করেছে সেটি জানার জন্য জনপ্রিয় এ অ্যাপটি ইতিমধ্যেই বিপুল সংখ্যক স্মার্টফোন ব্যবহারকারী ব্যবহার করছেন। কোন নম্বর মোবাইলে সংরক্ষিত না থাকলেও খুব সহজেই এ অ্যাপের মাধ্যমে ব্যবহারকারী জানতে পারেন কে ফোন করেছে এবং তার পরিচয় যা ছবিসহ অনেক […]

The post ব্যবহারকারীদের এসএমএস পড়ছে ট্রুকলার appeared first on বিজ্ঞান ☼ প্রযুক্তি.

অ্যান্ড্রয়েড মেসেজে এআর প্রযুক্তি

বিশ্বখ্যাত সার্চ ইঞ্জিন গুগল এবার নিজেদের মেসেজে নিয়ে আসছে অগমেন্টেড রিয়েলিটি (এআর) প্রযুক্তি সুবিধা। এর ফলে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা নিজেরা একে অপরকে এআর প্রযুক্তি সুবিধা ব্যবহার করে ফায়ারওয়ার্কস ইফেক্ট, বেলুন, অ্যানিমেশন পাঠাতে পারবেন। এ সুবিধাটি ইতিমধ্যে জনপ্রিয় বার্তা আদান-প্রদানের অ্যাপ স্ন্যাপচ্যাটে রয়েছে। এরই মতো করে অ্যান্ড্রয়েড মেসেজেস টেক্সিং অ্যাপে নতুন এ সুবিধা যুক্ত হতে যাচ্ছে বলে […]

The post অ্যান্ড্রয়েড মেসেজে এআর প্রযুক্তি appeared first on বিজ্ঞান ☼ প্রযুক্তি.

অ্যাপের মাধ্যমে কিনুন রেলওয়ের টিকিট

সহজে ঘরে বসেই বাংলাদেশ রেলওয়ের টিকিট কেনার সহজ সুবিধা চালু হয়েছে। এর ফলে এখন আর লম্বা লাইন ধরে রেল স্টেশনে দাড়িয়ে থাকতে হবে না। বরং অ্যাপের সাহায্যেই পছন্দসই টিকিট কেনা যাবে। গত ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ রেলওয়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে রেল সেবা নামের অ্যাপটি চালু করেছে। অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিজের মোবাইল নম্বর ও জাতীয় পরিচয় পত্রের নম্বর […]

The post অ্যাপের মাধ্যমে কিনুন রেলওয়ের টিকিট appeared first on বিজ্ঞান ☼ প্রযুক্তি.