আমরা কমবেশি সকলেই টরেন্ট এর সাথে পরিচিত। মুভিজ, মিউজিক, টিভি সিরিয়াল, সফটওয়্যার ইত্যাদি ডাউনলোড করার জন্য অনেকেই এই জনপ্রিয় মাধ্যমটি ব্যবহার করে থাকেন।অনেকে মনে করেন টরেন্ট এর মাধ্যমে কোন কিছু ডাউনলোড করা সম্পূর্ণ অবৈধ। কিন্তু এই ধারণাটি অনেকাংশে ভুল। কেননা এটি বৈধ নাকি অবৈধ সেটা নির্ভর করে আপনি কি ডাউনলোড করছেন তার উপর। আপনি যদি পাইরেটেড মুভি, মিউজিক, সফটওয়্যার ইত্যাদি ডাউনলোড করার জন্য টরেন্ট ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আপনার টরেন্ট প্রসেসিং সম্পূর্ণ অবৈধ।যাইহোক টরেন্টিং বৈধ নাকি অবৈধ সেটা আমাদের আজকের বিষয় না। যারা পিসিতে টরেন্ট ডাউনলোড করেন তারা সকলেই টরেন্ট ক্লাইন্ট বিট-টরেন্ট বা ইউ-টরেন্ট ব্যবহার করে ফাইলগুলো ডাউনলোড করে থাকেন। কিন্তু এখন আপনি চাইলেই আপনার স্মার্টফোন ব্যবহার করেই টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারেন। গুগল প্লে স্টোরে টরেন্ট ডাউনলোড করার জন্য বেশ কিছু অ্যাপ রয়েছে।কিন্তু প্রশ্ন হলো এগুলোর মধ্যে সেরা টরেন্ট অ্যাপ কোনটি? এই প্রশ্নের উত্তর দিতেই আজকের এই আর্টিকেল নিয়ে আমি আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি।$ads={1}আরও পড়ুনঃ

অতিরিক্ত স্মার্টফোন ব্যবহারের কুফল

সেরা ১০ ফটো এডিটিং অ্যাপ
সেরা ১২ ভিডিও এডিটিং অ্যাপ

সেরা ৭ ফ্রি ওয়েদার অ্যাপ [২০২০]

সেরা ৫ অ্যান্ড্রয়েড টরেন্ট অ্যাপ ২০২০
1. uTorrent

আমাদের লিস্টে প্রথমেই রয়েছে জনপ্রিয় টরেন্ট ডাউনলোড অ্যাপ uTorrent। এটি টরেন্ট ডাউনলোড অ্যাপগুলোর মধ্যে অন্যতম সেরা একটি অ্যাপ। গুগল প্লে স্টোরে এর ১০০ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোড রয়েছে। প্লে স্টোরে এর রেটিংও বেশ ভালো। ক্লিন এন্ড কাট ইউজার ইন্টারফেস এর এই অ্যাপটিতে টরেন্ট ডাউনলোড করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ফিচারসই রয়েছে। ম্যাগনেট লিংক সাপোর্ট এর পাশাপাশি অ্যাপটিতে আপনি একাধিক একটিভ টরেন্টও একসাথে সেট করতে পারবেন।এছাড়াও অ্যাপটির সাহায্যে আপনি একের অধিক ফাইল একসাথে ডাউনলোড করতে পারবেন। এতে ইন্টিগ্রেটেড মিডিয়া লাইব্রেরি এবং মিডিয়া প্লেয়ার থাকায় ডাউনলোডের পাশাপাশি আপনি অনলাইনেই ভিডিও প্লে করতে পারবেন। কোন ফাইল ডাউনলোড করার সময় আপনি এটি কোথায় সেভ করতে চান তাও সিলেক্ট করার অপশান এতে রয়েছে। এতে ব্যাটারি সেভার ফিচারও রয়েছে, তবে তা ফ্রি ভার্সনে উপলব্ধ নয়।অ্যাপটির সাহায্যে কোনো ফাইল ডাউনলোড কারার সময় আপনি কত স্পিড পাচ্ছেন এবং ফাইলটির সীডার্স এবং লীচার্স কত ইত্যাদি তথ্য সহজেই জানতে পারবেন। এই টরেন্ট ডাউনলোডার অ্যাপটি প্লে স্টোর হতে ফ্রিতেই ডাউনলোড করা যাবে। তবে এর ফ্রি ভার্সনে অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই। এছাড়াও ফ্রি ভার্সনে কিছু ফিচারস লিমিটেশন রয়েছে। মনে রাখা ভালো কোন ফাইল ডাউনলোডের ক্ষেত্রে সীডার্স এবং লীচার্স এর অনুপাত সমান হারে থাকলে ফাইলটি খুব দ্রুত ডাউনলোড করা যাবে। ডাউনলোড
2. BitTorrent

আজকের লিস্টের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে BitTorrent। অ্যাপটি প্রায় ইউটরেন্ট অ্যাপের মতোই। প্লে স্টোরে এর ৪.৩ রেটিংয়ের পাশাপাশি ১০ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোড রয়েছে।ইউটারেন্ট অ্যাপের বিকল্প হিসেবে আপনি এই অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন। সহজ সাবলীল ইউজার ইন্টারফেসের এই অ্যাপটিতে রয়েছে ইন্টিগ্রেটেড মিডিয়া লাইব্রেরি।ডাউনলোডের পাশাপাশি অনলাইনে ভিডিও প্লে করার জন্য রয়েছে মিডিয়া প্লেয়ার। মূলত এতে ইউটারেন্ট অ্যাপের সমস্ত ফিচারসই প্যাক করা হয়েছে।আপনি এতে কোন ফাইল ডাউনলোড করার আগে লোকেশন সেট করতে পারবেন, যদি মোবাইল ডাটা দিয়ে ডাউনলোড করতে না চান ওয়াই ফাই মোড অন করে রাখতে পারবেন, এছাড়াও এটি দিয়ে আপনি একসাথে অনেকগুলো ফাইল ডাউনলোডও করতে পারবেন। এই অ্যাপটি ফ্রি। তবে এর ফ্রি ভার্সনে ফিচার সংখ্যা কিছু কম এবং এতে অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই। ইন-অ্যাপ-পারচেস এর মাধ্যমে অ্যাপটি প্রো ভার্সনে আপগ্রেড করা যাবে। ডাউনলোড
3. Flud

আরেকটি ফুলি-ফিচার্ড অ্যান্ড্রয়েড টরেন্ট ক্লায়েন্ট হলো Flud। প্লে স্টোরে অ্যাপটির ৪.৬ রেটিং এর পাশাপাশি ১০ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোড রয়েছে। অ্যাপটির ফ্রি ভার্সনে সকল প্রয়োজনীয় ফিচারসই রয়েছে। সহজে ব্যবহারযোগ্য ইউজার ইন্টারফেসের এই অ্যাপটির সাহায্যে আপনি কোন ডাউনলোড লিমিট ছাড়াই আপনার পছন্দের টরেন্ট ফাইলটি ডাউনলোড করতে পারবেন। অ্যাপটির ইউজার ইন্টারফেস কাস্টমাইজ কারার অপশন থাকায় আপনি লাইট অথবা ডার্ক মোডে টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন। অ্যাপটির সাহায্যে আপনি ডাউনলোড লোকেশন সেট করতে পারবেন, ফাইল ডাউনলোডের সময় তা অন্য ফোল্ডারে স্থানান্তর করতে পারবেন, ওয়াই ফাই মোড চালু করে রাখতে পারবেন, এছাড়াও আরো অনেক ফিচার এতে রয়েছে।অ্যাপটি ম্যাগনেট লিংক সাপোর্টের পাশাপাশি অনেকগুলো প্রটোকলও সাপোর্ট করে। যেমনঃ UPnP, DTH, PeX, uTP ইত্যাদি। এছাড়াও অ্যাপটি এনক্রিপশন, আইপি ফিল্টারিং এবং প্রক্সি সমর্থিত হওয়ায় নিরাপদে টরেন্ট ডাউনলোড করা যাবে। আর এই সব ফিচার আপনি অ্যাপটির ফ্রি ভার্সনেই পাচ্ছেন। তবে এর ফ্রি ভার্সনে কোন অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই। ডাউনলোড
4. TorrDroid

TorrDroid অ্যাপটির সাহায্যে আপনি সহজেই টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন। এতে একটি বিল্ট-ইন সার্চ ইঞ্জিন রয়েছে, যা আপনাকে বিভিন্ন টরেন্ট ফাইল অনুসন্ধান করতে সাহায্য করবে। অ্যাপটিতে থাকা সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে আপনি ফ্রি এবং ওপেন সোর্স কন্টেন্টগুলো ডাউনলোড করতে পারবেন। গুগল প্লে স্টোরে এই অ্যাপটির ভালো রেটিং এর পাশাপাশি ১০ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোড রয়েছে। এর ইউজার ইন্টারফেসও বেশ সহজ। অ্যাপটির সাহায্যে আপনি একসাথে অনেকগুলো টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন। এতে ওয়াই ফাই মোড, এক্সটার্নাল মেমোরি সাপোর্ট সহ প্রয়োজনীয় সকল ফিচারসই প্যাক করা হয়েছে।অ্যাপটি ম্যাগনেট লিংক সাপোর্ট সহ অনেকগুলো প্রটোকলও সাপোর্ট করে। যেমনঃ DHT, LSD, UPnP, NAT-PMP। অ্যাপটির সাহায্যে আপনি হাই স্পিডে টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন কোন প্রকার রেস্ট্রিকশন ছাড়াই।আর এই সব ফিচারসের বেশির ভাগই ফ্রিতেই পাওয়া যাবে। কিন্তু অ্যাপটির ফ্রি ভার্সনে কোন অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই। ডাউনলোড
5. ZetaTorrent

লিস্টে থাকা আরেকটি সেরা টরেন্ট অ্যাপ হলো ZetaTorrent। এই অ্যাপটিতে রয়েছে ইউনিক সব ফিচার। প্লে স্টোরে অ্যাপটির ১ মিলিয়ন প্লাস ডাউনলোডের পাশাপাশি ৪.৪ রেটিং রয়েছে। অ্যাপটিতে একটি বিল্ট-ইন ব্রাউজার রয়েছে এবং এতে একটি অ্যাড-ব্লকারও রয়েছে। এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে টরেন্ট ফাইল এবং ম্যাগনেট লিংক সনাক্ত করতে পারে।অ্যাপটিতে বিল্ট-ইন ব্রাউজারের পাশাপাশি একটি ফুলি-ফিচার্ড ফাইল ম্যানেজার রয়েছে, যার মাধ্যমে আপনি ফাইল ট্রান্সফার করতে পারবেন।অ্যাপটিতে টরেন্ট ডাউনলোড করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ফিচারসই প্যাক করা হয়েছে। এতে ওয়াই ফাই মোড, ডার্ক মোড, ডাউনলোড লিমিট সেট করার ফিচার সহ আরো অনেক ফিচারস রয়েছে। প্লে স্টোরে অ্যাপটির একটি ফ্রি ভার্সন রয়েছে। তবে এতেও অন্যান্য টরেন্ট ক্লায়েন্টের মতো কোন অ্যাড ফ্রি ইউজার ইন্টারফেস নেই এবং ফ্রি ভার্সনে ফিচার সংখ্যাও কিছু কম। ডাউনলোড
এই ছিলো অ্যান্ড্রয়েডের জন্য সেরা ৫টি টরেন্ট অ্যাপ। আপনি যদি আপনার ফোনে টরেন্টের মাধ্যমে কোন কিছু ডাউনলোড করতে চান, তাহলে উপরে উল্লেখিত অ্যাপগুলো ট্রাই করে দেখতে পারেন। আশা করি ভালো লাগবে।