ফেইসে যেকোনো ধরনের স্পট বা দাগই অস্বস্তিকর। কারণ এসব স্পট বা দাগ আমাদের মুখের স্বাভাবিক সৌন্দর্য নষ্ট করে। স্পট বা দাগ বিভিন্ন কারনে হতে পারে। প্রতিদিনের কাজ স্বাভাবিকভাবে করার জন্যে আমরা অনেকেই চশমার উপর নির্ভরশীল। কিন্তু সারাদিন চশমা পরার ফলে আমরা প্রায়ই একটি কমন সমস্যার সম্মুখীন হই, সেটা হচ্ছে নাকের দু’পাশে কালচে দাগের মত দেখা দেয়। অনেক সময় এই দাগগুলোকে গুরুত্ব না দেয়ার কারনে বহুদিন পর্যন্ত আমাদের ফেইসে থেকে যায়। অথচ সাধারণ কিছু ঘরোয়া উপায় কিন্তু হতে পারে এই কঠিন সমস্যার সহজ সমাধান। কিভাবে? চলুন আজকে তাই জেনে নেই নাকের দু’পাশে চশমার কালো দাগ দূর করার ৪টি উপায় সম্পর্কে!

নাকের দু’পাশের স্পট দূর করার উপায়গুলো জেনে নিন

১) কালো দাগ দূর করতে আলুর রস

আমাদের ত্বকে মেলানিন নামক উপাদান বেড়ে যাওয়ার ফলে কালচে ভাব সৃষ্টি হয়। আমরা অনেকেই জানি, ত্বকের এই কালচে ভাব দুর করতে আলুর রসের কার্যকারিতা কতটুকু। এর জন্যে আলু প্রথমে পাতলা করে কেটে নিতে হবে। নাকের দু’পাশে যে জায়গায় কালচে ভাব রয়েছে, ঐ জায়গাগুলোতে ১৫ থেকে ২০ মিনিট ভালো করে আলুর স্লাইস দিয়ে ম্যাসাজ করে নিন। চাইলে আলু ব্লেন্ড করে রস তৈরি করে নিতে পারেন। তুলার সাহায্যে একই ভাবে ত্বকে ম্যাসাজ করে নিন, ঠিক যেভাবে টোনার অ্যাপ্লাই করেন!

২) শসার আর লেবুর রস হতে পারে সহজ সমাধান

lemon

লেবুর রস প্রাকৃতিকভাবে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। ব্লিচিং এজেন্ট হিসেবেও এর তুলনা হয় না। কিন্তু সরাসরি এটি মুখে অ্যাপ্লাই করলে প্রবলেম হতে পারে, তাই শসার রসের সাথে মিশিয়ে লাগাতে পারেন। শসার রসের সাথে কয়েকফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে একটি পরিষ্কার তুলার সাহায্যে ১০ থেকে ১৫ মিনিট কালচে জায়গায় ভালো করে ম্যাসাজ করে নিন। সপ্তাহে ৩ থেকে ৪ বার এভাবে অ্যাপ্লাই করলেই কিছুদিনের মধ্যে এর সুফল দেখতে পারবেন।

৩) ত্বককে উজ্জ্বল ও মসৃণ করে টমেটো

যেকোনো কালচে দাগ দূর করতে টমেটো ম্যাজিকের মত কাজ করে থাকে। কারণ টমেটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ও ভিটামিন এ। এছাড়াও এতে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এসব কয়টি উপাদানই ত্বকের দাগ দূর করতে কাজ করে। এজন্যে একটি পাকা টমেটো নিয়ে স্লাইস করে কেটে নিন। চাইলে এতে সামান্য চিনিও মিশাতে পারেন। এবার আলতোভাবে মুখে ম্যাসাজ করে নিন। টমেটোর রসের সাথে চিনির মিশ্রণ প্রাকৃতিক স্ক্রাব হিসেবে কাজ করে।

৪) সকল সমস্যার সমাধানে অ্যালোভেরা জেল

অ্যালোভেরার গুণাগুণ এবং কার্যকারিতা সম্পর্কে আমরা কম বেশি সবাই জানি। যাদের বাড়িতে অ্যালোভেরা গাছ রয়েছে, তারা সরাসরি গাছের অ্যালোভেরা কেটে নিয়ে জেল বের করে ব্যবহার করতে পারেন। যাদের সরাসরি অ্যালোভেরা ব্যবহারে সমস্যা হয়, তারা মার্কেট থেকে প্রসেসড অ্যালোভেরা জেল কিনেও ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকের যেকোনো দাগ দূর করতে অ্যালোভেরা খুব দ্রুত কাজ করে। রাতে ঘুমানোর আগে অ্যালোভেরা জেল মেখে রাখুন। সকালে পানি দিয়ে ভালোভাবে মুখ পরিস্কার করে ধুয়ে নিন। সপ্তাহে অন্তত ২ থেকে ৩ বার ব্যবহার করুন। চশমার দাগের পাশাপাশি ব্রণের দাগ দূর করতেও এটি দারুণ সহায়ক।

glass wearing

অনেকদিন ধরে চশমা পরার ফলে যারা এ ধরণের সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন, তাদেরকে অবশ্যই নিজের ত্বকের যত্ন নেয়ার ব্যাপারে সচেতন হতে হবে। অনেক সময় সুক্ষ দাগও সময়মতো পরিচর্চার অভাবে স্থায়ীভাবে থেকে যায়। মেকআপ বা কনসিলার কোন কিছুর ব্যবহারই লং লাস্টিং সমাধান দিতে পারে না। আজকে আমরা জেনে নিলাম বাসায় থাকা কিছু উপাদান দিয়েই নাকের দু’পাশে চশমার কালো দাগ দূর করার ৪টি উপায় সম্পর্কে। আশা করছি এটা আপনাদের জন্য অনেক বেশি হেল্পফুল হবে। আর স্কিনকেয়ারের অথেনটিক প্রোডাক্টের জন্য সাজগোজ আছে আপনাদের পাশে। শপ কিনবা অনলাইন থেকে আপনার প্রয়োজনীয় পণ্যটি কিনতে পারবেন।

ছবি- oliooliveoil, সাজগোজ

The post নাকের দু’পাশে চশমার কালো দাগ দূর করার ৪টি উপায়! appeared first on Shajgoj.