বছর অতিক্রান্ত করে শুরু হয়ে গেল বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজো। আর পুজো মানেই প্রচুর শপিং, খাওয়া-দাওয়া, জমিয়ে আড্ডা এবং প্যান্ডেল হপিং। কিন্তু এবার যে পরিস্থিতি অন্যরকম, কারণ ভারতবর্ষ সহ গোটা বিশ্ব এখন করোনা অতিমারির কবলে বিধ্বস্ত। তাই, সকলের সুরক্ষার কথা ভেবেই কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছে, পুজোর সময় প্যান্ডেলে দর্শনার্থীদের ভিড় করা চলবে না। যার জন্য কিছু নির্দেশিকাও জারি করেছে হাইকোর্ট। ফলে ‘আসছে বছর আবার হবে’ মনকে এই সান্ত্বনা দিয়ে উৎসবে মেতে থাকা থেকে বিদায় নিচ্ছেন অনেকেই।

কিন্তু পুজোর সময় কি আর দুয়ারে খিল এঁটে ঘরে বসে থাকা যায়! তাই পুজো প্রেমীরা করোনাকে কেয়ার না করেই বেরিয়ে পড়েছেন উৎসবের আনন্দে গা ভাসাতে। তবে এই আনন্দের মাঝে করোনা সংক্রমণের কথা একেবারেই ভুলে গেলে চলবে না। কারণ, বাইরে বেরোলেই একাধিক মানুষের সংস্পর্শে আসতে হবে, আর তা থেকেই বাড়বে সংক্রমণের আশঙ্কা। তাই সংক্রমণ এড়িয়ে নিজেদের সুস্থ রাখার ক্ষেত্রে মেনে চলতে হবে কয়েকটি নিয়ম। তাহলেই হয়তো আপনি অনায়াসেই এবারের পুজো উপভোগ করতে সক্ষম হবেন। চলুন দেখে নিন সেই নিয়মগুলি কী কী।

১) এই সময় বেরোনো বা বাইরে কোথাও যাওয়ার আগে সঙ্গে অবশ্যই রাখুন অতিরিক্ত কয়েকটি মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, গ্লাভস, ফেস শিল্ড, প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র, অল্প পরিমাণ শুকনো খাবার ও জল।

২) সর্বদা মাস্ক ব্যবহার করুন। মাস্ক ছাড়া বাড়ি থেকে এক পাও এগোবেন না। বাড়ির বাইরে থাকার সময়টুকু সবসময় মুখে মাস্ক রাখবেন, মুখ থেকে একবারেই মাস্ক খুলবেন না।

৩) শুধু মাস্ক নয়, হাতে গ্লাভস এবং ফেস শিল্ডও ব্যবহার করুন।

৪) বাইরের খাবার খাওয়া এড়িয়ে চলুন, বাড়ি থেকে নিয়ে যাওয়া শুকনো খাবার খান।

৫) খাওয়ার আগে হাত ভালো করে স্যানিটাইজ করে বা ধুয়ে নেবেন। এক্ষেত্রে মাস্ক ও গ্লাভস সাবধানে খুলে নির্দিষ্ট স্থানে রাখুন, যাতে মাস্কের সামনের অংশ শরীরের অন্যান্য জায়গায় না লাগে। হাত একবার স্যানিটাইজ করার পর খাওয়ার আগে সেই হাত কোথাও স্পর্শ করবেন না।

৬) যদি রেস্টুরেন্টে খেতে যান তবে মাস্ক খুলে সঠিক জায়গায় ফেলুন এবং ভালো করে হাত-মুখ ধুয়ে তারপর টেবিলে বসুন।

৭) যেসব জায়গায় ভিড় দেখবেন সেই জায়গাগুলি এড়িয়ে চলুন, কারণ ভিড় জায়গা থেকে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা সবথেকে বেশি।

বাড়ি ফিরে বাড়ি ফিরেই বাড়ির বাইরে জুতো খুলে রাখবেন। তারপর বাথরুমে গিয়ে সাবান মেখে ভালো করে স্নান করবেন এবং কাপড় কেচে নেবেন। প্রয়োজনে গরম জলে স্নান করুন ও কাপড় কাচুন। স্নান না করা পর্যন্ত বাড়ির অন্যান্য জিনিস ছোঁবেন না ও মেঝেতে বসবেন না। পরা জুতোটিও পরিষ্কার করে নিন।

এছাড়াও বাড়িতে বয়স্ক, অসুস্থ কোনও সদস্য এবং ছোট বাচ্চা থাকলে তাদের নিয়ে বাড়ির বাইরে না বেরোনোই ভাল। নিজের এবং তাদের সুরক্ষার স্বার্থে এটি অবশ্যই মেনে চলা জরুরি। পাশাপাশি সরকার এবং স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের দেওয়া সমস্ত পরামর্শ সঠিকভাবে মেনে চলুন। সবশেষে বলব সতর্ক থাকুন, সুস্থ থাকুন।