Home বিউটি টিপস চুলের যত্নে আমলকির ব্যবহার

চুলের যত্নে আমলকির ব্যবহার

0
চুলের যত্নে আমলকির ব্যবহার
চুলের যত্নে আমলকি

চুলের যত্নে আমলকির তুলনা নেই

আমলকি নামটি খুব পরিচিত এবং বহুল প্রচলিত একটি ফল। বহুগুনে সমৃদ্ধ একটি ফল যাতে আছে ভিটামিন সি ভরপুর। এছাড়াও আছে ক্যালসিয়াম এবং আয়রন যা চুলের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের কাজ করে থাকে। অর্থাৎ এটি চুল পড়া কমাতে সাহায্য করে, চুলের গ্রোথ বৃদ্ধিতে, ডেনড্রাফ দূর করতে, চুলের ঝলমলে ভাব ঠিক রাখতে আরো বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য আমলকি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আমলকি বাজারে সহজেই পাওয়া যায়। তাই বাসায় সহজেই বানিয়ে নেয়া যেতে পারে আমলকির হেয়ার প্যাক। সুস্থ ও সুন্দর চুল পেতে আমলকির কয়েকটি হেয়ার প্যাক এর ব্যবহার দেখে নিন…….👇

১. শুকনো আমলকি গুঁড়ো

শুকনো আমলকি গুঁড়ো, মেথি গুঁড়ো, মেহেদী একেবারে শর্টকাটে এই সাধারণ জিনিসগুলোর সাহায্যে আপনি হতে পারেন আকর্ষণীয় চুলের অধিকারী।
এই ৩টা উপাদান একসাথে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে চুলের গোড়ায় দিন। চুলের আগাফাটা সমস্যায় সমস্ত চুলে ভালোভাবে লাগাবেন। লাগানোর পর শাওয়ার ক্যাপ পরে থাকবেন আর এভাবেই ১ঘন্টা রাখার পর শুধু পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে। ভালো রেসাল্ট পেতে সপ্তাহে ৩দিন এই হেয়ার প্যাক ব্যবহার করুন। এতে চুল পড়া কমবে, চুল ঝলমলে ও মজবুত হবে।

২. চুল পড়া রোধে আমলকির চিকিৎসা:

চুল পড়া রোধ করতে আপনি যেসব কাজ করতে পারেন তার মধ্যে একটি হল আমলা তেল দিয়ে আপনার চুল ম্যাসেজ করা। চুলের জন্য একটি ‘সুপারফুড’ হিসাবে বিবেচিত, আমলা ভিটামিন, খনিজ, অ্যামিনো অ্যাসিড এবং ফাইটোনিট্রিয়েন্ট সমৃদ্ধ যা মাথার ত্বকে পুরো রক্ত সঞ্চালনকে উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করে।

চুলের গ্রন্থিকোষগুলিতে পর্যাপ্ত পরিমাণ অক্সিজেন এবং পুষ্টি সরবরাহের মাধ্যমে, আমলা তেল চুলের তন্তুগুলিকে শক্তিশালী করে তোলে এবং চুল পড়া বন্ধ করে দেয়। তাই চেষ্টা করুন আমলা বা আমলকির তেল ব্যবহার করতে। দেখে নিন কিভাবে তৈরি করবেন আমলা বা আমলকির তেলটি

আমলকির তেল: প্রথমে নারকেল তেল তৈরি করুন। চুলায় জালে নারকেল তেল বসিয়ে গরম করুন আর গরম হলেই আমলকি গুঁড়ো দিয়ে দিন এবং নাড়তে থাকুন ব্রাউন কালার না আশা পর্যন্ত। তারপর ঠান্ডা করে নিয়ে মাথার ত্বকে ব্যবহার করুন।

৩. খুসকিমুক্ত চুল রাখতে আমলকির ব্যবহার:

খুশকির সমস্যা কম বেশি সকলেরই হয়ে থাকে বিশেষ করে শীতের সময় তা প্রকট আকার ধারণ করে যা খুবই বিশ্রী লাগে বেপারটা। নিয়মিত আমলকির প্যাক স্ক্যাল্পে ব্যবহার করলে চুল হবে খুশকিমুক্ত। আমলকি গুঁড়োর একটি পেস্ট তৈরি করুন আর তা ব্লেন্ড করুণ ৮-১০ মিনিট। এর সাথে কিছু তুলসী পাতা দিতে হবে। পেস্ট তৈরি হয়ে গেলে তা হাত ও আঙুলের সাহায্যে চুলের গোড়ায় অর্থাৎ স্ক্যাল্পে ভালোভাবে লাগাতে হবে। লাগিয়ে রেখে দিতে হবে ৩০ মিনিট তারপর শুধু ঠান্ডা পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন আর অবশ্যই চুল রোদে শুকানোর চেষ্টা করবেন।

৪. শুধু ব্যবহারেই নয় আমলকি রাখতে হবে আপনার দৈনিক খাদ্য তালিকায়

প্রতিদিন আমলকি খাবার অভ্যাস তৈরি করুন এটা শরীর ও চুল সবকিছুর জন্যই উপকারী। যারা ডায়েট করে থাকেন তাদের চুল পড়ার সমস্যার জন্য ডায়েটের লিস্টে আমলকি রাখুন চুল পড়া বন্ধ হবে এবং শরীরে ভিটামিন সি এর অভাব পূরণ করবে। চুলের জন্য এটাও অনেক কার্যকরী একটি টিপস। স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুলের জন্য আমলকি খান প্রতিদিন।

৫. চুলের গ্রোথে আমলকি:

আমলায় প্রয়োজনীয় ফ্যাটি অ্যাসিডের ওডল থাকে যা ফলিকলে প্রবেশ করে চুলকে নরম, চকচকে এবং হালকা করে তোলে। এটি উচ্চ আয়রন এবং ক্যারোটিন সামগ্রীর কারণে চুলের বৃদ্ধিকেও উদ্দীপিত করে। চুলের বৃদ্ধি প্রচার করে এমন অন্যান্য গুল্মের সাথে মিশ্রিত করে আপনি চুলের জন্য আমলা পেস্ট তৈরি করতে পারেন।
চুল শক্ত ও মজবুত করতে আমলকির সাথে আরো ২টি ভেষজ উপাদান মিশিয়ে নিন- রিঠা এবং শিকাকাই ২টি শক্তিশালী ভেষজ উপাদান। রিঠা, শিকাকাই এবং আমলকির গুঁড়ো একসাথে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন এবং গোড়া থেকে পুরো চুলে ব্যবহার করুন। এটা চুল করবে হেলদি এবং শক্তিশালী।

৬. আমলকির হেয়ার টনিক

আমলকি নারকেল তেল বা বাদামের তেলের সাথে মিশিয়ে টনিক হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

যেভাবে মিশ্রণটি তৈরি করবেন: আমলকি আগে বিচি ছাড়িয়ে নিতে হবে তারপর ধুয়ে একেবারে পানি ঝরিয়ে শুকনো করতে হবে। নারকেল তেল দিয়ে এটা তৈরি করতে তরল বাদামি হওয়া পর্যন্ত নারকেল তেলে আমলার শুকনো টুকরোগুলো সিদ্ধ করুন। হালকা বাদামি কালার চলে আসলে নামিয়ে ঠান্ডা করে নিন। এই টনিক টি আপনার মাথার ত্বকে এবং চুলে বেবহার করুন।

বাদাম তেল দিয়ে আমলকি ব্যবহার করতে আমলকির আগে থেকে রস বের করে রাখতে হবে। তারপর আমলকির রস বাদাম তেলের সাথে মিশিয়ে তারপর গরম করতে হবে।

চুলের জন্য আমলকি নিয়ে প্রায়শই জিজ্ঞাসা করা কিছু প্রশ্ন এবং তার উত্তর দেখে নিন:

১। আমলকি চুলের জন্য ভালো?

আমলকি চুলের জন্য “সুপারফুড” হিসেবে বিবেচিত। ভিটামিন, খনিজ, এমাইনো এসিড, এবিং ফাইটনিউট্রিয়েন্টস যেমন এই বিস্ময়কর ফল তে উপস্থিত একটি জিলিয়ন পুষ্টি উপাদানগুলির সাথে এটি চুল পড়া নিয়ন্ত্রণের প্রতিকার এবং প্রাকৃতিক কন্ডিশনার।
আমলকিতে এন্টিঅক্সিডেন্ট গুলির পরিমান ও খুব বেশি য

ভালো ফলাফল পেতে এমন পণ্য ব্যবহার করুন যা প্রাকৃতিক এবং খাঁটি আমলকির তৈরি। অথবা নিজেই বাসায় আমলকি রোদে শুকিয়ে গুঁড়ো করে নিয়ে ব্যবহার করুন।

২। চুলের জন্য আমলকি গুঁড়ো কিভাবে ব্যবহার করবেন?

আমলকি ফল শুকিয়ে আমলা গুঁড়ো করা হয়। পানিতে আমলা গুঁড়ো মিশিয়ে পাতলা পেস্ট তৈরি করা যেতে পারে। ভালো রেসাল্ট পেতে পানির বদলে ব্যবহার করা যেতে পারে গোলাপজল, শসার রস। চুলের পুষ্টি যোগাতে চুলের গোড়ায় পেস্ট টি ব্যবহার করুন। লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৩। চুলের জন্য কাঁচা আমলকি যেভাবে ব্যবহার করবেন:

চুলের জন্য কাঁচা আমলকি ব্যবহারে ২টি উপায় রয়েছে। প্রথম হলো আমলকি গ্রাইন্ডার এর সাহায্যে রস তৈরি করে নিন। তারপর রস তা ছেকে নিয়ে চুলে ব্যবহার করুন।

চুলের জন্য কাঁচা আমলকি ব্যবহারের অন্য উপায়টি হলো আমলা ওয়াশ প্রস্তুত করা। আমলকি টুকরো টুকরো করে পানিতে ফেলে রেখে প্রায় ৩০মিনিটের জন্য পানিতে রেখে দেয়া হয়। এই পানি চুলের জন্য অনেক উপকারী।

৪। চুল হেলদি করতে আমলা কিভাবে খাবেন?

প্রতিদিন আমলকি খাওয়া চুলের গ্রোথে সহায়তা করে। এটা মাথার ত্বকের স্বাস্থ্য বজায় রাখতে সহায়তা করে। আপনার ডায়েটে আমলকি অন্তর্ভুক্ত করার আরেকটি উপায় হলো আমলকির রস ওয়ান করা আপনার রুটিনের একটি অংশ।
তবে তাজা আমলকি খাওয়ার নিজস্ব অনন্য সুবিধা রয়েছে। আপনার কাছে যদি আমলকির টক খুব বেশি লাগে তাহলে আমলকির আচার বা ক্যান গুলো খেতে পারেন।

৫। কিভাবে আমলকির তেল বানাবেন?

যদি আপনি বাসায় আমলকির তেল বানাতে চান তাহলে দেখে নিন কিভাবে বানাবেন: আমলকির তেল বানাতে আপনার প্রয়োজন হবে নারকেল তেল বা তিলের তেল এর। নারকেল তেল বা তিলের তেলের সাথে টুকরো করে কাটা আমলকি দিয়ে জ্বাল করতে হবে বাদামি না হওয়া পর্যন্ত। ঠান্ডা হলে ব্যবহার করতে হবে। এটা একবারে খুব বেশি পরিমানে বানিয়ে রাখবেন না ।

উপসংহার: বর্তমান সময়ে যখন প্রায় প্রত্যেকেরই চুলের সমস্যা দুর্বল জীবনযাত্রা, ডায়েট এবং পরিবেশ দূষনের কারণে হচ্ছে তখন আমলকি একটি আশ্চর্য আয়ুর্বেদিক ফল যা চুলের স্বাস্থ্য পুনরুদ্ধারে সহায়তা করে। তাই এটি ডায়েটের পাশাপাশি আমাদের নিয়মিত চুলের যত্নের রুটিনে অন্তর্ভুক্ত করা স্বাস্থ্যকর চুল পাওয়ার সর্বোত্তম উপায়।

সকল প্রকার বিউটি প্রোডাক্ট পেতে ভিজিট করুন : https://www.bijoymart.com/

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here